কালীগঞ্জে পোষ্ট অফিসের পেছন থেকে নবজাতকের মৃতদেহ উদ্ধার

মোঃ হাবিব ওসমান, ঝিনাইদহ ব্যুরোঃ
চারিদিকে আজ শুনি অনাথ, বে-ওয়ারিশ, ডাষ্টবিনে, ঝোপ ঝাড়ে, বনে বাদাড়ে, মাঠে ঘাটে ফেলে দেওয়া জীবিত অথবা মৃত নবজাতক শিশুর আহাজারি আর আত্মনাদ। মানুষ নামে হায়েনাদের উল্লাস, অট্ট হাসি, সে হাসিতে যেন প্রতিধ্বনিত হচ্ছে আকাশে বাতাসে, শিশুর হৃদয়ের কান্না যেন ছড়িয়ে পড়েছে দিক থেকে দিগন্তে, আজ আর কেউ শুনতে পায় না সেই আহাজারি। সবাই যেন নিরব দর্শকের ভূমিকায়, এই কান্নার আওয়াজ ধ্বনিত হচ্ছে মানবতার আকাশে, আহ! আসসোস! আর দেখি লুণ্ঠিত হচ্ছে মানবতা, আজ যেন মানুষের কোন মূল্য নেই এই ধরায়। কোথায় হারিয়ে গেলো আজ ¯্রষ্টার শ্রেষ্ঠ সেই মহাদান!
মানবসভ্যতার উন্নতির এই যুগে আমরা কোন দিকে যাচ্ছি এটা ভেবে দেখা দরকার। আমরা আজ মানবিক মূল্যবোধের অবক্ষয়ের বীভৎসতার নিষ্ঠুরতা দেখতে পাই। দিনদিন বেড়েই চলেছে ডাস্টবিনে, ড্রেনে, মাঠে ঘাটে, বনে ও বনে বাদাড়ে কুড়িয়ে পাওয়া নবজাতকের সংখ্যা। এসব ঘটনা এখন আর কাউকে আলোড়িত করে না। মানুষ কত নিচে নামলে পরে নবজাতককে ডাস্টবিনসহ যেখানে সেখানে ফেলে দিতে পারে, তা সহজে অনুমেয়। সভ্যতার এ যুগেও কিছু নরপিশাচ ডাস্টবিন কিংবা ময়লার ভাগাড়ে নবজাতককে ফেলে দিতে কুণ্ঠাবোধ করছে না। অথচ মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সাঃ) শিশুদের আল্লাহ তায়ালার বাগানের সুগন্ধ ফুলের সাথে তুলনা করেছেন। একজন মানুষের মানসিক অবস্থা কতটা বিকৃত রুচির হলে এমন আচরণ করতে পারে? সৃষ্টির সূচনালগ্ন থেকে স্বামী-স্ত্রীর ভালোবাসার মধ্য দিয়ে সন্তান পৃথিবীর আলোর মুখ দেখে আসছে। অথচ এখন মানুষ ভালোবাসার সন্তানকে ডাস্টবিনসহ বিভিন্ন পরিত্যক্ত জায়গায় নিক্ষেপ করছে শুধু অবৈধ পাপাচার ঢাকতে। এই অপরাধ প্রবণতা এ সমাজে আজ প্রকট আকার ধারন করেছে। আমরা কি পারিনা নবজাতকের জীবন সুরক্ষা দিতে ? যে সমাজে অবাধ প্রেমাচার, পরকীয়া, যৌনাচারের সমস্ত রুট খোলা থাকে, সে সমাজে মৃত বা জীবিত নবজাতক যেখানে সেখানে পড়ে থাকবে এটাই তো স্বাভাবিক!
ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ শহর থেকে নবজাতক শিশুর মৃত দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। স্থানীয়রা শনিবার দুপুরে শহরের পোষ্ট অফিসের পিছনে পরিত্যক্ত জমিতে মৃত নবজাতক শিশুর লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয় । সংবাদ পেয়ে ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার ঘটনাস্থলে ছুটে যান। এসময় সাথে ছিলেন কালীগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র আশরাফুল আলম আশরাফ। তাৎক্ষনিকভাবে সাংসদ আনোয়ারুল আজিম আনার পৌরসভার প্যানেল মেয়র আশরাফুল আলম আশরাফকে শিশুটি উদ্ধার করে দাফনের ব্যবস্থা করার নির্দেশ দেন।
প্যানেল মেয়র আশরাফুল আলম আশরাফ বলেন, এমপি সাহেবের নির্দেশে পৌরসভার কর্মীদের সহযোগিতায় নবজাতকের দাফনের স-ুব্যবস্থা করা হয়েছে।
কালীগঞ্জ থানার ওসি মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, কারো অবৈধ সম্পর্কের ফসল। ধারনা করা হচ্ছে গত রাতে অবৈধ ভাবে গর্ভপাত ঘটায়ে পলিথিন ব্যাগে করে এখানে ফেলে রেখে গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *