অবশেষে নাটোরের গুরুদাসপুরের আওয়ামীলীগের ৪৫ নেতাকর্মির জামিন

 

এস,এম ইসাহক আলী রাজু নাটোর প্রতিনিধিঃ-
নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলায় পুলিশের ওপর হামলা এবং সরকারি কাজে বাঁধাদান মামলায় আটককৃত আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের ৪৫ জন নেতাকর্মি পাঁচ দিন হাজত বাসের পর আজ সোমবার দুপুরে জামিনে মুক্তি পেয়েছেন।
জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১১ মে উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভার দিন ধার্য্য ছিল। সভায় বিশৃঙ্খলা হতে পারে এমন আগাম সর্তক বাণী পেয়ে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়। ওই সভায় নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুসসহ দলীয় নেতাকর্মীদের উপস্থিত থাকার কথা। কিন্তু সংসদ অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও পৌর মেয়র শাহনেওয়াজ আলী মোল্লা প্রায় শতাধিক মোটর সাইকেল নিয়ে উপজেলা চত্বরে আসে এসময় পুলিশ তাদের নিষেধ করলেও তারা তা শোনেননি। এক পর্যায়ে তাদের বাধা দিতে গেলে তারা পুলিশের ওপর চড়াও হয়। এসময় দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ লাঠি চার্জ সহ ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এসময় পাঁচ পুলিশসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়। এ ঘটনায় ১২ মে শুক্রবার সকালে গুরুদাসপুর থানার তৎকালীন এসআই সাইদুজ্জামান বাদী হয়ে পৌর মেয়র শাহনেওয়াজ আলী মোল্লাসহ আওয়ামী লীগের ৬৭জন নেতাকর্মীর নাম উল্লেখসহ আরো ২০০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে একটি মামলা করেন।
ওই মামলার আসামীরা উচ্চ আদালত থেকে নেয়া জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় গত ২৯ আগষ্ট বুধবার নাটোরের জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে তারা জামিনের আবেদন করেন। এরপর বিজ্ঞ বিচারক শুনাণী শেষে তাদের আবেদন না মঞ্জুর করে নাটোর জেলা কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন। আটককৃতরা কারাবাসের পাঁচ দিনের মাথায় আজ সোমবার পুনরায় জামিনের আবেদন জানালে বিজ্ঞ বিচারক শুনাণী শেষে তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *