গুরুদাসপুরে খেলার মাঠ সংস্কারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

 

মো. জনি পারভেজ,গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধিঃ-
উঁচু নিঁচু মাঠ। বৃষ্টি এলেই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। খেলার অনুপযোগী মাঠের কারনে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপটিও আয়োজন করা যায়নি।
আজ সোমবার নাটোরের গুরুদাসপুর সরকারী মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের খেলার মাঠের করুনদশা লাঘবের দাবিতে মানববন্ধন করেছে শিক্ষার্থীসহ ক্রিড়ামোদি জনসাধরণ।
‘অবহেলা অযন্তে মাঠ হয়েছে নষ্ট, একটুখানি খেলতে গেলে পোহাতে হয় কষ্ট, উঁচু নিঁচু মাঠের মাটি বড় বড় ঘাস, বৃষ্টি হলে জমে পানি করবো কি মাছ চাষ এমন অসংখ্য শ্লোগান সম্বলিত ফেস্টুন হাতে সোমবার গুরুদাসপুর থানা-শাপলা চত্বরে ওই মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। এলাকার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ নানা শ্রেণিপেশার মানুষ ওই মানববন্ধনে অংশ নেন। এর আগে শিক্ষার্থীদের উদ্দ্যোগে মাঠ সংস্কারের দাবি সম্বলিত ব্যানার হাতে বিদ্যালয় মাঠ থেকে একটি র‌্যালী বের হয়ে গুরুদাসপুর-নাজিরপুর সড়কের থানা-শাপলা চত্বরে এসে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
খেলার এই মাঠের এমন করুনদশার ব্যাপারে গুরুদাসপুর উপজেলার ক্রিড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক রাজ কুমার কাশি বলেন, এই মাঠটি গুরুদাসপুর উপজেলার কেন্দ্রীয় মাঠ। জাতীয় অনুষ্ঠানসহ সকল ধরনের অনুষ্ঠান এখানে অনুষ্ঠিত হয়। গত ১৬-১৭ অর্থ বছরে মাঠ সংস্কারের জন্য সংসদ সদস্য অর্থ বরাদ্দ দিয়ে মাঠটি সংস্কারের ব্যবস্থা করেছেন। সর্বশেষ বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী খেলাটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও মাঠটি খেলার অনুপযোগী হওয়ায় মাইকিং হওয়ার পরও বিলচলন শহীদ শামসুজ্জোহা সরকারী কলেজ মাঠে ভ্যানু পরিবর্তন করা হয়েছে। তিনি শিক্ষার্থীদের মানববন্ধনে একত্বতা প্রকাশ করে মাঠটির দ্রুত সংস্কার দাবি জানান।
গুরুদাসপুর সরকারী মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. জাহাঙ্গির আলম বলেন, আগের বরাদ্দের টাকায় মাঠের পশ্চিম পাশে বালি ফেলা হয়েছে। পরবর্তীতে আরো কিছু বরাদ্ধ পেলে মাঠটি সম্পূর্ণ সংস্কার করা সম্ভব হবে। তাছাড়া বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুর্নামেন্টটি আয়োজনের সব প্রস্তুতি নিয়েও শেষ পর্যন্ত জলাবদ্ধতার আশঙ্কায় উপজেলা প্রশাসন ভেন্যু পরিবর্তন করে বিলচলন শহীদ শামসুজ্জোহা সরকারী কলেজ মাঠে নিয়েছেন। যেহেতু সকল জাতীয় অনুষ্ঠান এই মাঠে অনুষ্ঠিত হয় সেহেতু মাঠটির দ্রুত সংস্কার করা প্রয়োজন বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *