‘ইংলিশ ক্রিকেটের আসল লিজেন্ড কুক’

সাউদাম্পটনে টেস্ট সিরিজ নিশ্চিতের পর অ্যালিস্টার কুক জানালেন, ভারত সিরিজ শেষে ১২ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ইতি টানছেন। বিদায়ের এই ঘোষণার পর ইংল্যান্ডের শীর্ষ টেস্ট ব্যাটসম্যানকে শ্রদ্ধায় ভাসিয়েছেন সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেটাররা।

২০০৬ সালে নাগপুর টেস্টে অধিনায়ক মাইকেল ভন হাঁটুর চোটে ছিটকে যাওয়ায় শেষ মুহূর্তে প্রথমবার টেস্ট একাদশে ডাক পান কুক। অভিষেক ইনিংসে ৬০ রান করার পর দ্বিতীয়টিতে ছিলেন ১০৪ রানে অপরাজিত।

যার বদলি হয়ে টেস্ট ক্যাপ পেয়েছিলেন কুক, সেই ভন প্রশংসায় ভাসালেন সাবেক সতীর্থকে, ‘ইংল্যান্ড ক্রিকেটের প্রতি এত বেশি অবদান রাখেনি আর কেউ, সামর্থ্যরে এত বেশি বের করে আনতে পারেনি আর কোনো খেলোয়াড়, অ্যালিস্টার কুকের চেয়ে এত বেশি মানসিক শক্তি দেখাতে পারেনি আর কেউই। তার চেয়েও বড় ব্যাপার, আমাদের কাছে সে সবচেয়ে নিখুঁত ক্রিকেটার। দারুণ সব স্মৃতির জন্য ধন্যবাদ কুকি।’

কুককে ‘লিজেন্ড’ আখ্যা দিয়েছেন তার সতীর্থ জনি বেয়ারস্টো, ‘একজন সত্যিকারের লিজেন্ড, যে মাঠে ও মাঠের বাইরে মাইলফলক তৈরি করেছে। তোমার পাশে খেলতে পারা সম্মানের। চমৎকার ক্যারিয়ারের জন্য অভিনন্দন।’

ইংল্যান্ডের পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড টুইটারে লিখেছেন, ‘কুকি কেমন লিজেন্ড ছিল, সেটা কোনোও শব্দ দিয়ে বোঝানো যাবে না।’

কুকের সাবেক কোচ ও মেন্টর গ্রাহাম গুচ আবেগাপ্লুত, ‘অভিষেকের পর থেকে গত ১২ বছর ইংল্যান্ডের ব্যাটিং স্তম্ভ ছিল কুক। তার অবসরের সিদ্ধান্তে আমরা সবাই দুঃখ পেলেও সে আমাদের দেশের জন্য যা করেছে সেটা ভেবে অবশ্যই আনন্দিত হওয়া উচিত। ইংলিশ ক্রিকেটের আসল লিজেন্ড সে।’

ভারতের সাবেক ব্যাটিং গ্রেট ভিভিএস লক্ষণ মনে করিয়ে দিলেন কুকের অভিষেকের দিনটা, ‘নাগপুরে আমাদের বিপক্ষে যখন তার অভিষেক হল, ঠিক তখনই বুঝতে পেরেছিলাম সে বিশেষ এক প্রতিভা এবং ইংলিশ ক্রিকেটে বিশাল ভূমিকা রাখবে। ইংল্যান্ডে চমৎকার ক্যারিয়ারের জন্য অ্যালিস্টার কুককে অভিনন্দন জানাই।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *