কুল্যায় কৃষিজ জমি ধ্বংস করে তৈরি হচ্ছে ইটভাঁটা আঁখি ব্রিক্স

জ্বলেমিন হোসেনঃ

আশাশুনি উপজেলার কুল্যায় কৃষিজ জমি নষ্ট করে এবং পরিবেশগত ছাড়পত্র ছাড়া তৈরি হচ্ছে আঁখি ব্রিক্স নামে ইট ভাঁটা। জমির মালিকদের মোটা অংকের টাকা লোভ দেখিয়ে প্রায় ৫০ বিঘা ফসলি জমি ধ্বংস করে আমোদ খালি বিলে এ ভাঁটা তৈরি হচ্ছে। এমনকি ভাঁটায় চলাচলের জন্য ওয়াবদার গাছ ও কর্তণ করে যাতায়াতের ব্যবস্থা করেছে। এ নিয়ে শালিশে ভাঁটাকে জরিমানা করা হয়েছে। পার্শ্ববর্তী লোকালয় অবস্থিত। কুল্যা রাজবংশী পাড়া জেলেদের অবস্থান ভাঁটার সন্নিকটে থাকায় এলাকার বাসিন্দারা মনে করছেন এ ভাঁটা তৈরির ফলে তাদের উপর বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে। সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় প্রায় ২০ একর জমিতে তৈরি হচ্ছে এ ইটভাঁটা। প্রতি বিঘা জমি হারি দেওয়া হচ্ছে ১২ হাজার টাকা করে। ওয়াবদার খাস জমি দখল করে নিয়েছে। ভাঁটায় চলাচলের জায়গায় সরকারি গাছ কর্তণ করা হয়েছে। এছাড়া এ ভাঁটার পাশে তৈরি হয়েছে অন্য একটি ভাঁটার পট। সেখানেও প্রায় ১৫/২০ বিঘা ফসলি জমি ধ্বংস করা হয়েছে। জানা যায় সেটি হাজী ব্রিক্সের পট। সেখানে ইট তৈরি করে কুলতিয়ায় হাজী ব্রিক্সে নিয়ে আসা হয়। সেখানেও চলাচলের জন্য সরকারি গাছ কর্তণ করা হয়েছে। এ বিষয়ে কুল্যা সামাজিক বনায়নের কমিটির সভাপতি রমজান আলির সাথে কথা বললে তিনি জানান ভাটার রাস্তা তৈরির জন্য গাছ কর্তণ করা হয়েছে। দুই ভাঁটাকে ৫ হাজার টাকা করে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। উপজেলা বন কর্মকর্তা আমজাদ হোসেনের মুঠোফোনে কথা বললে তিনি জানান এ পর্যন্ত তারা যে গাছ কর্তণ করছে তাদেরকে সেই গাছ লাগানোর কথা বলছি। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলিফ রেজার মুঠোফোনে কথা বললে তিনি জানান বিষয়টি আমার জানা নেই। বিষয়টি সত্য হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *