কালীগঞ্জে সাবেক পৌর মেয়র বিজুর নেতৃত্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭২ তম জন্মদিন পালিত

মোঃ হাবিব ওসমান, ঝিনাইদহ ব্যুরোঃ
ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ সন্তান আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭২ তম জন্মদিন নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে উদযাপিত হয়েছে।
এ উপলক্ষে শুক্রবার সকালে কালীগঞ্জ-যশোর মহাসড়ক হক চিড়া মিলের সামনে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কালীগঞ্জ পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি আবেদ আলী। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা ও কালীগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান বিজূ। কর্মসূচির মধ্যে ছিল মা দিবস পালন, কেক কাটা, আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল।
প্রধান অতিথির বক্তেব্যে বিজু বলেন, আজ প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার ৭২ তম জন্মদিন। ১৯৪৭ সালের এই দিনে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় তাঁর জন্ম। এই জন্মদিন উপলক্ষে আমি আপনাদের আহবান করেছি আপনারা আমার ডাকে সাড়া দিয়েছেন এ জন্য আমি আপনাদের কাছে চির কৃতজ্ঞ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত আওয়ামীলীগের মহিলা কর্মিদের উদ্দেশ্যে বলেন আপনারা হয়তো মনে করছেন পৌরসভার সাবেক মেয়র বিজু কেন আমাদের ডেকেছেন? আসলে আমি আপনাদের না ডেকে থাকতে পারি না। এর কারণ আমি যদি আপনাদের কৃতজ্ঞতা না জানাই তাহলে নিজেকে অকৃজ্ঞ বলে মনে হয়। গত ৩০ আগষ্ট আমি জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদৎ বার্ষিকীতে প্রিয় মা-বোনদেরকে আহবান করেছিলাম সেই আহবানে আপনারা সাড়া দিয়ে আমাকে সম্মানিত করেছিলেন। আপনারা ঐ দিন কালীগঞ্জ বাসীকে দেখিয়ে দিয়েছিলেন যে বিজুর পাশে তার প্রিয় মা-বোনেরা আছে। আজও আবার প্রিয় নেত্রীর জন্ম দিনে আপনাদের পাশে পেয়ে আমি নিজেকে ধন্য মনে করি। এ সময় তিনি আরো বলেন, সন্তানের কাছে যেমন তার মা প্রিয় আমার কাছেও আমার প্রিয় জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রিয়। আজকে নেত্রী দেশের জনগনের টাকায় বৃহৎ পদ্মা সেতুর কাজ বাস্তবায়ন প্রায় শেষের দিকে। সে দেশবাসীকে বুঝিযে দিয়েছে আমি বঙ্গবন্ধুর কন্যা। পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন করেছে, পায়রা সমুদ্র বন্দর স্থাপন করেছে। আমাদের নেত্রী মা-বোনেদের কথা ভাবেন কারন সরকারি চাকুরীজীবি মা-বোনেরা গর্ভবতী হলে তাদের জন্য ৬ মানের ছুটি ঘোষনা করেছেন। তিনি আরো উল্লেখ করেন যে আমি পৌরসভার মেয়র থাকা কালীন বিভিন্ন উৎসব আসলে প্রধান মন্ত্রী উপহার সামগ্রী মা-বোনদের হাতে তুলে দিয়েছিলাম। আমার প্রিয় নেত্রী ২৪ ঘন্টার আঠারো ঘন্টা জনগনের কল্যানের জন্য ভাবেন এবং কাজ করেন। প্রধানমন্ত্রী রাত-১২ টা পর্যন্ত মানুষের সময় দিয়ে থাকেন এটা আমি বাস্তবে দেখেছি। প্রায় ১০ বছর হতে চলেছে আওয়ামীলীগের সরকার ক্ষমতায় থেকে দেশে অনেক অনেক উন্নয়ন করেছে যা পূর্বের কোন সরকার এত উন্নয়ন করেনি। তাই সবার কাছে আবারও নৌকায় ভোট দেওয়ার জন্য আহবান জানান।
অনুষ্ঠানটি উপস্থাপন করেন থানা সেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য জিয়াউল হক অপু,। বক্তব্য রাখেন, থানা সেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ন-আহবায়ক জিহাদ হাসান, থানা সেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ন-আহবায়ক মোজাহেদুল ইসলাম রুমি, থানা যুবলীগের সাবেক আহবায়ক ইব্রাহিম খলিল লিটন প্রমূখ।